1. bangladeshbartatelevision@gmail.com : admin :
  2. ridoyhasanjoy@gmail.com : Reporter-1 :
  3. journalistrhasan@gmail.com : Reporter-2 :
  4. bangladeshbarta1@gmail.com : Reporter-3 :
  5. abdullah957980@gmail.com : Ramjan Bhuiyan : Ramjan Bhuiyan
প্রধান খবর
ষাটনল পর্যটনের জন্য সবচেয়ে আকর্শনীয় জায়গা কুড়িগ্রামে ১ হাজার দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য বিতরণ সিরাজগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তার খামখেয়ালিতে বয়স্ক ভাতার টাকা চুরি গুরুদাসপুর হাসপাতালে ভাংচুরের ঘটনায় ১০ জনের নামে মামলা,আটক-৪ নওগাঁয় আম পাড়তে গিয়ে বিদ্যুৎ স্পর্শে ইউপি সদস্যের মৃত্যু নওগাঁয় পুকুরের পানিতে ডুবে ভাই-বোনের মর্মান্তিক মৃত্যু গোমস্তাপুরে মহানন্দা নদী থেকে রইসউদ্দিন নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার সিরাজগঞ্জে মসজিদের তার চুরি করতে গিয়ে বিদ্যুৎপৃষ্টে চোর নিহত কালকিনি কৃষি বিভাগের ব্যাপক উন্নয়ন দেখতে বিভিন্ন জেলার কৃষকদের কৃষিভ্রমণ নাগেশ্বরীতে সাংবাদিক রবিউল ইসলাম তার পিতার উপর সন্ত্রাসী হামলা

বিনা চিকিৎসায় মারা গেলেন মালায়েশিয়ায় কর্মরত শাহজাদপুরের যুবক

  • Saturday, January 16, 2021
  • 60 বার পড়া হয়েছে

শফিকুল ইসলাম পলাশ শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস! পরিবারের স্বচ্ছতা ফেরাতে বিদেশ গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন শাহজাদপুরের সাইদুল ইসলাম (২৬)। বুক ভরা স্বপ্ন নিয়ে ২০১৪ সালে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমান সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার খুকনী নতুন পাড়া গ্রামের মোঃ আব্দুল আউয়ালের ছেলে সাইদুল ইসলাম।

আশা ছিল বিদেশি মুদ্রায় কপাল ফিরবে পরিবারের। কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে আত্মীয় পরিবারহীন বিদেশের মাটিতে লাশ হয়ে দেশে ফিরলেন তিনি। এদিকর পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি ছিল সাইদুল।

পরিবারের স্বচ্ছলতা ফেরাতেই মালায়েশিয়া তোজোটিয় ইম্পিয়ান বিলাস মনোফ কিয়ারায় কর্মরত ছিলেন তিনি। পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ৬ জানুয়ারি গ্যাসফোম করেন সাইদুল।

এনজিওগ্রাম করার পর জানা যায় স্টোক হয়েছিল তার। আত্মীয় স্বজন না থাকায় সেখানে চিকিৎসা করানোরও কেউ ছিল না, মৃত্যুর আগে বাবা-মাকে ফোন করে বলেছিলেন টাকা পাঠাতে, জানিয়ে ছিলেন দেশে আসার আকুতি।

ছেলের যন্ত্রনা কষ্ট সহ্য করতে না পেরে ৬০ হাজার টাকাও পাঠিয়ে ছিলেন তাঁর পিতা, টাকা পেয়ে বিমানের টিকিট ও করেছিলেন দেশে ফেরার জন্য,১৩ তারিখে ফ্লাইট ছিল তাঁর।

কিন্তু ভাগ্য তার সহায় হয়নি, ৯ তারিখে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। মৃত্যুর পর লাশ কারখানা থেকে বের করে খোলা জায়গায় ফেলে রাখা হয়। এমনকি কারখানা থেকে অস্বীকার করা হয় তাদের ওখানে চাকরির কথা।

এদিকে সাইদুলের লাশ শনিবার সকালে বাড়িতে আসার পর কান্নায় ভেঙে পড়ে পরিবারের লোকজন।

এমন টকবগে যুবকের বীনা চিকিৎসায় করুণ মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
সাইদুলের বাবা-মা কান্নায় ভেঙে পড়ে আহাজারি করে জানান, এভাবে বিদেশের মাটিতে বিনা চিকিৎসায় যেন কারো সন্তান হারাতে না হয়।

মালয়েশিয়াতে আমাদের আত্মীয়-স্বজন থাকা সত্ত্বেও চাকরি হারানোর ভয়ে কেউ কাছে আসতে পারে নাই ।

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর

MD

Customized BY NewsTheme