1. bangladeshbartatelevision@gmail.com : admin :
  2. ridoyhasanjoy@gmail.com : Reporter-1 :
  3. journalistrhasan@gmail.com : Reporter-2 :
  4. bangladeshbarta1@gmail.com : Reporter-3 :
  5. abdullah957980@gmail.com : Ramjan Bhuiyan : Ramjan Bhuiyan
প্রধান খবর
কমলগঞ্জের গৃহবধূর আত্মাহত্যাকে পরিকল্পিত হত্যা দাবী করে পরিবারের থানায় মামলা, আটক-৩ চরভদ্রাসনে প্রশাসনিক ভবন ও হলরুম নির্মানের ঢালাই কাজের উদ্বোধন মাদারীপুরের কালকিনিতে আবু ত্ব-হা’র নিখোঁজের প্রতিবাদে মানববন্ধন চরভদ্রাসনে দুর্যোগ বিষয়ক স্থায়ী আদের্শাবলী কর্মশালা সম্পন্ন নিজেদের মধ্যে সৌহার্দ্য-সম্প্রীতি বাড়ান; নিউইয়র্কে সংবর্ধনায় শামীম ওসমান এমপি দুর্গাপুরের সীমান্তবর্তী আদিবাসী গ্রাম গুলোতে মৌসুমী ব্যাধী মারাত্বক আকার ধারন করেছে পঞ্চগড়ে মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম-২০২১ শীর্ষক জাতীয় সম্মেলন দুমকিতে এবারে ভোটারের কদর বেড়েছে, শেষ মূর্হুতের প্রচারনা তুঙ্গে নাজিরপুরে ২ মালিখালী ইউপি চেয়াম্যানের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার কাহালু তে হাট ইজারাদারকে ছুরিকাঘাত করার ঘটনায় বিএনপি নেতা গ্রেফতার

কক্সবাজার শয্য জেলা সদর হাসপাতালে দুর্নীতির আখড়া!

  • Thursday, January 28, 2021
  • 147 বার পড়া হয়েছে

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

কক্সবাজার শয্য জেলা সদর হাসপাতাল হলো, অত্র জেলার গরীব দুখী অসহায় মানুষের শেষ ঠিকানা। তা এখন দূর্নীতির আখড়া হয়েগেছে। মানুষ কখনো সুস্থ ও নিরাপদ থাকতে হাসপাতালের দ্বারেও যায় না? যখন কোন দূর গঠনা কিংবা অসুস্থতায় ভোগে, তখন লোকেরা নিরাময়ের জন্য হাসপাতাল যায়, সেখান থেকে আবার অনেকে মৃত্যুর পথ যাত্রী হয়ে ফিরে আসে।

এখন সেই শেষ ঠিকনা ব্যবসায় পরিনত হয়েছে। কোথায় যাবে সাধারণ জনগণ? এমনি একটি গঠনা ঘটেছে কক্সবাজার শয্য জেলা সদর হাসপাতালে।

আজ বিকালে কক্সবাজার শয্য জেলা সদর হাসপাতালের চতুর্থ তলায়।
একজন হার্ডের রোগী ইন্তেকাল করেন।

চতুর্থ তলা থেকে মৃতদেহ নিচে, নামানোর জন্য যে, ভ্যানগুলো ব্যবহার করা হয়,
রোগির স্বজনেরা সেই ভ্যানের জন্য উক্ত ওয়ার্ডের দায়িত্বরতদের কাছে গেলা উনারা নিচে যোগাযোগ করতে বলে। যখন নিচে রিসিপশনে যোগাযোগ করা হলে তারা, এ বিষয়ে জানে না বলে স্বজনদের তাড়িয়ে দেয়। পরবর্তীতে পুনরায় চতুর্থ তলায় দায়িত্বরতদের এই বিষয়ে জানালে তারা আবারও একি কথা বলে ফিরিয়ে দেয়।

এভাবে কয়েকবার উপরে-নিচে চেষ্টার পর একজন ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করলে ও কোন সুরাহা মিলে নি।

শেষ পর্যন্ত ঘন্টা কানিক পর লাশবাহী এম্বুলেন্সে থেকে লাশ রাখার ভ্যান নিয়ে ৫-৬ জনে বহন করে চতুর্থ তলা থেকে মৃতদেহ নিচে নিয়ে আসে।

আবার,
রোগীর সাথে থাকা স্বজনদের কাছে যানতে চাইলে তারা বলে, রোগীদের কোন ভাবে সরকারি সুযোগ সুবিধা দেওয়া হয় না।
যতক্ষণ পর্যন্ত না তাদের কে খুশী করা না হয়, কি রকম খুশী? কথা দিয়ে, না, তাদের খুশী হচ্ছে টাকা।

ভুক্তভোগীরা জানান, ওয়ার্ড ভয় থেকে শুরু করে জি এম পর্যন্ত কারো ব্যবহার ঠিক নেই।
যারা জনগণের সেবক, তারা এখন ভক্ষক হয়েগেছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে কক্সবাজার জেলার সাধারণ জনগণের একমাত্র জোর দাবি হচ্ছে, এই রকম ভক্ষকদের বিদায় করে নতুনভাবে জনগনের সেবাকারী লোকদের নিয়োগ দিয়ে, সাধারণ জনগণের শান্তির আবাসন সৃষ্টি করা হলে, তারা ভালোভাবে সেবা পাবে বলে মনে করেন।

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর

MD

Customized BY NewsTheme