1. bangladeshbartatelevision@gmail.com : admin :
  2. ridoyhasanjoy@gmail.com : Reporter-1 :
  3. journalistrhasan@gmail.com : Reporter-2 :
  4. bangladeshbarta1@gmail.com : Reporter-3 :
  5. abdullah957980@gmail.com : Ramjan Bhuiyan : Ramjan Bhuiyan
প্রধান খবর
ষাটনল পর্যটনের জন্য সবচেয়ে আকর্শনীয় জায়গা কুড়িগ্রামে ১ হাজার দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য বিতরণ সিরাজগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তার খামখেয়ালিতে বয়স্ক ভাতার টাকা চুরি গুরুদাসপুর হাসপাতালে ভাংচুরের ঘটনায় ১০ জনের নামে মামলা,আটক-৪ নওগাঁয় আম পাড়তে গিয়ে বিদ্যুৎ স্পর্শে ইউপি সদস্যের মৃত্যু নওগাঁয় পুকুরের পানিতে ডুবে ভাই-বোনের মর্মান্তিক মৃত্যু গোমস্তাপুরে মহানন্দা নদী থেকে রইসউদ্দিন নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার সিরাজগঞ্জে মসজিদের তার চুরি করতে গিয়ে বিদ্যুৎপৃষ্টে চোর নিহত কালকিনি কৃষি বিভাগের ব্যাপক উন্নয়ন দেখতে বিভিন্ন জেলার কৃষকদের কৃষিভ্রমণ নাগেশ্বরীতে সাংবাদিক রবিউল ইসলাম তার পিতার উপর সন্ত্রাসী হামলা

কাহালুতে -জামাতকে নিয়ে ভোট করার কারণে নৌকার পরাজয়

  • Tuesday, February 2, 2021
  • 84 বার পড়া হয়েছে

হারুনুর রশিদ কাহালু (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ
কাহালু পৌর নির্বাচনে নৌকার ভরাডুবির পর প্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ হেলাল উদ্দিন কবিরাজের সংবাদ সম্মেলনে দলীয় নেতাদের অভিযুক্ত করায় গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৩ টায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান তার কার্যালয়ে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করেন নৌকার প্রার্থী হেলাল উদ্দিন কবিরাজ আওয়ামীলীগের মূল স্রোতধারাকে বাহিরে রেখে হেফাজত ও জামাতকে নিয়ে নির্বাচন পরিচালনা করায় নৌকার পরাজয় হয়েছে। তার লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, গত ৩০ জানুয়ারি পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীর ৩১ জানুয়ারিতে সংবাদ সম্মেলনে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে মিথ্যা, বানোয়াট, মনগড়া কিছু অভিযোগ আমিসহ এই জনপদে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পরিক্ষিত নেতৃবৃন্দের নামে করা হয়েছে।

প্রকৃত পক্ষে নির্বাচনি ক্যাম্পিংয়ের শুরু থেকে উদ্দেশ্য মূলকভাবে দলের মূল ¯্রােতধারাকে বাহিরে রেখে ধর্মান্ধ, উগ্র মৌলবাদী জামাত-শিবির ও হেফাজত যারা ২০১৩ সালে এই কাহালুসহ বৃহুত্তর বগুড়ায় তান্ডবলীলা চালায় তাদেরকে নিয়ে নির্বাচনি প্রচার করে প্রার্থী হেলাল কবিরাজ। এই জনপদের সবাই অবগত আছে প্রয়াত নেতা আব্দুল মান্নান এমপি ও জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত নেতা বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মমতাজ উদ্দিনকে হত্যার উদ্দেশ্যে তাদের বাড়িতে ভয়াবহ অগ্নিসংযোগসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে হামলা হয়েছিলো।

সেই হেফাজতের কাহালু উপজেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত আমীর আব্দুল মান্নান কবিরাজকে এই নির্বাচনের প্রধান সমন্বয়ক করে সুকৌশলে আওয়ামীলীগসহ সকল সহযোগী সংগঠনকে নির্বাচনের বাহিরে রাখা হয়। একটি কোঠারি, পারিবারিক রাজনীতির ধারায় জামাত-শিবিরের সাথে আঁতাত করে দলের মূল ¯্রােতধারাকে পাশ কাটিয়ে সকল নির্বাচনি কর্মকান্ড পরিচালনা করায় দলীয় প্রার্থীর পরাজয় হয়েছে।

নির্বাচনের শুরু থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মনোনয়নে নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর পক্ষে আমরা একযোগে আমাদের সাংগঠনিক তৎপরতা চালায় ও নির্বাচনের সার্বিক কর্মকান্ডে অংশ গ্রহন করি। উল্লেখ্য যে, এখানে বর্তমান তথ্য ও প্রযুক্তির অন্যতম বাহক ফেসবুকে স্ট্যাটাস এবং মাঠ পর্যায়ে গণসংযোগ, সভা, সমাবেশের মাধ্যমে নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর পক্ষে আমরা অবস্থান গ্রহন করি। নৌকা প্রতিকের প্রার্থীকে জয়ী করতে আমরা ব্যাপক সাংগঠনিক কর্মকান্ড পরিচালনা করি।

এলাকার জনপ্রিয় মালঞ্চা ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ডাঃ আব্দুল হাকিম, নারহট্ট ইউপি’র দুবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি রুহুল আমিন তালুকদার বেলাল, কাহালু সদর ইউনিয়নের দুবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি সহকারি অধ্যাপক পিএম বেলাল হোসেন, উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক অঞ্জন কুমার প্রামানিক ও উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রাজিবসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বঙ্গবন্ধুর রাজনীতিতে এলাকায় গণমানুষের কাছে শেখ হাসিনার নির্ভীক কর্মী হিসেবে পরিচিত ও পরিক্ষিত।

আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে ক্লিন ইমেজের সংগঠক হিসেবে পরিচিত মুনসুর রহমান মুন্নু জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক, ৭৫ পরবর্তী দুঃসময়ে বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা কৃষকলীগের সাবেক সভাপতিকে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে হীন মানসিকতায় অভিযুক্ত করা হয়েছে।

বিএনপি-জামাত অধ্যুষিত এলাকায় সুকৌশলে দলের মূল ¯্রােতধারাকে বাহিরে রেখে একজন ব্যক্তি এবং পরিবারকে হাইলাইট করতে ও পারিবারিকতন্ত্র প্রতিষ্ঠার হীনস্বার্থ চরিতার্থ করতে আমাদেরকে চিহিৃত করে অভিযোগ উত্থাপন করা পরিকল্পিত ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

বিগত জেলা পরিষদ নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হেলাল উদ্দিন কবিরাজ দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে দলীয় ভাবমুর্তিকে প্রশ্নবিদ্ধ করে। বিগত উপজেলা নির্বাচনে দলীয় মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহন করে, নিজ সন্তানকে দাড় করায়।

জামাত-শিবির ও বিএনপির সাথে আঁতাত করে নৌকার বিজয়কে ছিনিয়ে নেওয়ার কারণে কষ্ট ও ক্ষোভে থাকা নেতাকর্মীদেরকে মানষিকভাবে সমন্বয় করতে আন্তরিক স্বদিচ্ছার ঘাটতিই নৌকার পরাজয়ের কারণ। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মুনসুর রহমান মুন্নু, জেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক রুহুল মোমিন তারিকসহ হেলাল উদ্দিন কবিরাজের করা সংবাদ সম্মেলনে অভিযুক্তরা এবং স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এব্যাপারে মোবাইলে আলহাজ্ব আঃ মান্নান কবিরাজের সাথে কথা বলা হলে তিনি জানান, আমি হেফাজতের কোন সদস্য না এবং কোনদিন হেফাজতের মিছিল মিটিং করিনি। অপরদিকে মোবাইল ফোনে পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ হেলাল উদ্দিন কবিরাজ জানান, আমিই আওয়ামীলীগের মূলধারার নেতা।

বরং সংবাদ সম্মেলন আয়োজনকারী স্বাধীনতা বিরোধীর সন্তান। আমরা সংবাদ সম্মেলনের খবর পেয়ে প্রকৃত আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মিটিং করছি। আর আমার বিরুদ্ধে যারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়েছে।

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর

MD

Customized BY NewsTheme