1. bangladeshbartatelevision@gmail.com : admin :
  2. ridoyhasanjoy@gmail.com : Reporter-1 :
  3. journalistrhasan@gmail.com : Reporter-2 :
  4. bangladeshbarta1@gmail.com : Reporter-3 :
  5. abdullah957980@gmail.com : Ramjan Bhuiyan : Ramjan Bhuiyan
প্রধান খবর

কাহালু দুর্গাপুর ইউনিয়ন বামুজা ও থলপাড়া মাইকে ঘোষণা দিয়ে সংঘর্ষ, আহত ১০

  • Sunday, February 14, 2021
  • 40 বার পড়া হয়েছে

হারুনুর রশিদ কাহালু (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ কাহালু উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের বামুজা গ্রামে ফুটবল খেলায় চেয়ার ভাঙ্গাকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বামুজা ও থলপাড়া গ্রামে মাইকে ঘোষনা দিয়ে দুই গ্রামের লোকজনের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ১৪ ফেব্রুয়ারি রোববার সকাল ১০টায় উপজেলার দূর্গাপুরের বামুজা ও থলপাড়া গ্রামবাসী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে কমপক্ষে ১০জন জখম হয়ে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৫ জন চিকিৎসাধীন রয়েছে, এবং স্থানীয় ভাবে ৫ জন চিকিৎসা নিয়েছেন। কাহালু থানা পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলে ও এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, আহতদের মধ্যে বামুজা গ্রামের ৪ জন ও থলপাড়ার গ্রামের ১ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। কাহালু থানার এস,আই খোকন চন্দ্র ও স্থানীয় ইউপি মেম্বার আশিকুর রহমান জানান, ৫ ফেব্রুয়ারি থলপাড়া আরেফিন যুব সংঘের উদ্দ্যোগে স্থানীয় মাঠে ফুটবল ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলা শেষে কে বা কাহারা ১০ থেকে ১৫টি চেয়ার ভাংচুর করে। সে ঘটনাকে কেন্দ্র করে বামুজা গ্রামের লোকজনকে দোষারোপ করে খেলা কমিটির আয়োজকরা। বিষটি নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে বির্তক চলছে। শনিবার রাতে বামুজা গ্রামে আজাহার আলী (৪১) কে আয়োজক কমিটির লোকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে জখম করলে পরিস্থিতি জটিল হয়ে ওঠে।

রবিবার সকালে থলপাড়া গ্রামের মসজিদের মাইকে ঘোষনা দিয়ে বামুজা গ্রামের লোকজনের সাথে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে তারপর পুলিশ প্রশাসন চলে আসার কিছুক্ষণ পর আবারও এই দুই গ্রামবাসীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। পুনরায় পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়া লোকজন পালিয়ে যায়। দূর্গাপুর চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান খান বাদের জানান, শনিবার রাতে আজাহারকে জখম করার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত করা হয়েছে। রবিবার ৩টায় বিয়টি নিয়ে উভয় পক্ষকে বসার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই থলপাড়া গ্রামে মসজিদে ঘোষনা দিয়ে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে ফুটবল খেলার কমিটির প্রধান আয়োজক আরেফিন মোবাইল ফোনে জানান, বামুজা গ্রামের লোকজন আমাদের থলপাড়া গ্রামের লোকজকে মারতে আসলে বিষয়টি, বেগ গতি দেখে মাইকে ঘোষনা দেওয়া হয়েছে। তবে স্থানীয় যুবলীগ নেতা বাদল জানান, বামুজার লোকজন সেখানে মারপিট করতে যায়নি, থলপাড়ার লোকজন তিন দফায় বামুজা গ্রামের লোকজনের উপর হামলা চলিয়েছে। কাহালু থানা (ওসি) জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, এখন সেখানকার পরিস্তিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এ ঘটনার এখন পর্যন্ত কোন পক্ষই মামলা করেনি।

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর

MD

Customized BY NewsTheme