1. bangladeshbartatelevision@gmail.com : admin :
  2. ridoyhasanjoy@gmail.com : Reporter-1 :
  3. journalistrhasan@gmail.com : Reporter-2 :
  4. bangladeshbarta1@gmail.com : Reporter-3 :
  5. abdullah957980@gmail.com : Ramjan Bhuiyan : Ramjan Bhuiyan

মাইজভাণ্ডার শরীফে সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ (ক.) ৮৪ তম খোশরোজ শরীফে লাখো ভক্ত জনতার অংশগ্রহণে সম্পন্ন

  • বৃহস্পতিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

মোঃ আল-আমিন ভূঁইয়া
দেশের শীর্ষ আধ্যাত্মিক কেন্দ্র চট্টগ্রাম ফটিকছড়ির মাইজভান্ডার দরবার শরীফের তিন দিনের কর্মসূচিতে দেশ-বিদেশ থেকে লাখো ভক্ত জনতা অংশগ্রহণ করে স্বস্তি ও শান্তিপূর্ণ জীবনের আর্তি-ফরিয়াদ জানিয়ে মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফের আধ্যাত্মিক মনীষী, ইমামে আহলে সুন্নাত শায়খুল ইসলাম শাহ্সূফী আল্লামা সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানীর (ক.) ৮৪ তম খোশরোজ আখেরি মুনাজাতে শামিল হন। লাখো ভক্ত জনতার উচ্ছ্বাসমুখর উপস্থিতিতে মাইজভাণ্ডার শরীফের পুরো এলাকা মুখরিত হয়ে ওঠে।
১০ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) রাতে সমাপনী দিনের মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন, পার্লামেন্ট অব ওয়ার্ল্ড সূফীজের প্রেসিডেন্ট, রাহবারে শরীয়ত ও ত্বরীক্বত , বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আওলাদে রাসুল (দ) শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.) বলেছেন, সারা বিশ্বে আজ অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি বিরাজ করছে। দেশে দেশে চলছে নিরীহ মানবতার ওপর দলন-পীড়ন ও বর্বরতা। বিশ্ববাসী হন্য হয়ে শান্তি খুঁজছে। কিন্তু কোথাও শান্তি নেই। বহু দেশে নিপীড়ক শাসকদের স্বেচ্ছাচারিতা ও ক্ষমতার দম্ভে পিষ্ট হচ্ছে নিরীহ মানবতা।
তিনি বলেন,আজ দেশে দেশে শোনা যায় মানবতার করুণ আহাজারি। দেশ ও বিশ্বে চলমান যাবতীয় গর্হিত মানবতারোধী তৎপরতা মোকাবিলায় ওলী বুজুর্গের দেখানো শান্তি-সম্প্রীতির আদর্শকে ধারণ করতে হবে। সর্বত্র শান্তি ও ভালোবাসার বাণী ছড়িয়ে দিয়ে সম্প্রীতির বিশ্ব সমাজ গড়তে হবে।
সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী বলেন, এ দেশের মাটি ও মানুষের মানস চেতনা উপযোগী ত্বরীক্বায়ে মাইজভাণ্ডারীয়া চর্চা বেগবান করার মাধ্যমে বৈশ্বিক শান্তির রূপরেখাই পেশ করেছেন আল্লামা সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ক.)। তিনি দেড় দশক আগে জাতিসংঘ অধিবেশনে প্রদত্ত বক্তৃতায় মদিনা সনদের আলোকে বর্তমান বৈশ্বিক সংকট উত্তরণ এবং বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠার যে ডাক দিয়েছিলেন তা আজও বেশ প্রাসঙ্গিক ও তাৎপর্যপূর্ণ।
খোশরোজ শরীফ উপলক্ষে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়া, হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্ট, মইনীয়া যুব ফোরামসহ বিভিন্ন সংগঠনের তিন দিনব্যাপী কর্মসূচিতে ছিল খতমে কুরআন, খতমে বুখারি, খতমে গাউছিয়া মাইজভাণ্ডারীয়া, খতমে খাজেগান, রওজায় গিলাফ চড়ানো, মাইজভাণ্ডার রহমানিয়া মইনীয়া দরসে নেজামি আলিম মাদ্রাসা এতিমখানা ও হেফজখানার সালানা জলসা ও দস্তারবন্দি, ফ্রি চিকিৎসাসেবা, মইনীয়া প্রকাশনী কর্তৃক প্রকাশিত কয়েকটি গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন, রক্তের গ্রুপ নির্ণয়, হুজুর কেবলার (ক.) দেশ-বিদেশের নানা অনুষ্ঠানের দুর্লভ আলোকচিত্র ও ভিডিও প্রদর্শনী, মাদকের বিরুদ্ধে গণস্বাক্ষর কর্মসূচিসহ মিলাদ মাহফিল এবং আখেরি মুনাজাত।
সালানা জলসায় হেফজখানার ১০ জন হেফজ সমাপনকারী ছাত্রকে পাগড়ি পরিয়ে দেন হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী।
এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন মইনীয়া যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি শাহ্জাদা সৈয়দ মেহবুব-এ-মইনুদ্দীন আল্-হাসানী, কার্যকরী সভাপতি শাহ্জাদা সৈয়দ মাশুক-এ-মইনুদ্দীন আল্-হাসানী, সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহ্জাদা সৈয়দ হাসনাইন-এ-মইনুদ্দীন আল্-হাসানী, হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্টের মহাসচিব অ্যাডভোকেট কাজী মহসীন চৌধুরী।
অতিথি ও আলোচক ছিলেন আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়ার কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট ওয়াজ উদ্দিন মিয়া, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব কবির চৌধুরী, মহাসচিব খলিফা শাহ্ আলমগীর খান মাইজভাণ্ডারী, প্রচার সম্পাদক আল্লামা রুহুল আমিন ভুঁইয়া চাঁদপুরী, মাইজভাণ্ডার রহমানিয়া মইনীয়া দরসে নেজামী আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আল্লামা গোলাম মুহাম্মদ খান সিরাজী, আন্জুমান চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি খলিফা মুহাম্মদ বোরহান উদ্দিন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক কাজী মুহাম্মদ শহিদুল্লাহ, মইনীয়া যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক খলিফা শাহ মুহাম্মদ আসলাম হোসাইন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও দৈনিক সময়ের আলোর ষ্টাফ রিপোর্টার খলিফা শাহ মোঃ কামরুজ্জামান হারুন, শাহ্ মুহাম্মদ ইব্রাহিম মিয়া মাইজভাণ্ডারী, মাওলানা বাকের আনসারী, হাফেজ মাওলানা মাকসুদুর রহমান, মাওলানা হাফেজ আব্দুন্নবী, মাওলানা নঈম উদ্দীন।
মিলাদ কিয়াম শেষে মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ, বিশ্বের নিপীড়িত মানবতার পরিত্রাণ এবং দেশ ও বৈশ্বিক শান্তি-সমৃদ্ধি কামনায় আখেরি মুনাজাত পরিচালনা করেন শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.)। পরে সবার মাঝে তবরুক পরিবেশিত হয়।

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর

MD

Customized BY NewsTheme